Some operating systems that are useful for peniteration testing are dissection - Best Solution Online Blog Website, Bestsolution Online , Online Earning and English Learning And All Movitioanal Post We will Provide For Your, How To success your Life Make Your Solution Via Our Media Platform With Our All User Take Your Solution,

December 5, 2019, 8:29 pm

Some operating systems that are useful for peniteration testing are dissection

Some operating systems that are useful for peniteration testing are dissection

Vary useful operating systems discussion



পেনেট্রেশন টেস্টিং উপযোগী কিছু অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।
1. Kali Linux :-
হ্যাকিংয়ে ব্যবহৃত Offensive Security সমৃদ্ধ Debian based একটি অপারেটিং সিস্টেম হলো- Kali Linux. এতে প্রায় ৩৭০ এরও বেশি পেনিটেস্টার টুলস্‌ মজুদ আছে। Debian based ডিস্ট্রো হওয়া সত্ত্বেও তাদের টুলসগুলোর নিয়মিত আপডেট পাওয়া যায়। এজন্যই পেনেট্রেশন টেস্টারদের কাছে এই অপারেটিং সিস্টেম পছন্দের তালিকায় সবার উপরে। এর সর্বশেষ সংস্করণ হলো Kali Linux 2017.3।
2. Parrot Security OS :-
Frozenbox টিম কতৃক Debian based আরেকটি অপারেটিং সিস্টেম হলো Parrot. এটি মূলত ইথিকাল হ্যাকিং, পেনেট্রেশন টেস্টিং, কম্পিউটার ফরেন্সিক, ক্রিপ্টোগ্রাফির ওপর ভিত্তি করে তৈরী করা। অপারেটিং সিস্টেমটি অনেকটা হালকা হওয়া সত্ত্বেও তার প্রভাব টুলস এবং মডিউলের ওপর একদম পড়েনি। এই অপারেটিং সিস্টেমটি আপনাকে অ্যানোনিমাসলি যেকোনো কাজ করতে সাহায্য করবে। মূলত Kali Linux এবং Frozenbox OS সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে এই অপারেটিং সিস্টেমটি। এটি তার টুলস্‌ আপডেট করার জন্য Kali repositories ব্যবহার করে। এর কিন্তু নিজস্ব repositories ও রয়েছে। জিনোম-২ থেকে উদ্ভূত MATE Desktop interface এর আদলে সুন্দর ও শক্তিশালী ইন্টারফেসের ওপর নির্ভর করে Parrot Security অপারেটিং সিস্টেমটি তৈরি করা হয়েছে। এর সর্বশেষ সংস্করণ হলো Parrot Security 3.10 ।
3. BackBox :-
পেনেট্রেশন টেস্টিং এবং সিকিউরিটি বিষয়গুলোর উপর ভিত্তি করে তৈরি ubuntu based অপারেটিং সিস্টেম হলো BackBox। BackBox মূলত ৭০ টির অধিক গুরুত্বপূর্ণ টুলসের সমন্বয়ে গঠিত। হ্যাকারদের পছন্দের এই অপারেটিং সিস্টেম অত্যন্ত দ্রুতগতির এবং সহজ। এতে পরিপূর্ন ডেস্কটপ পরিবেশ বিদ্যমান, যা XFCE environment দিয়ে তৈরি করা। নিয়মিত আপডেট হতে থাকা বিভিন্ন টুলসের সমন্বয়ে তৈরি এই সিস্টেমটির সর্বশেষ সংস্করণ BackBox linux 5 যা উবুন্টু ১৬.০৪ ভার্সন থেকে সংরক্ষিত।
4. Samurai Web Testing Framework :
এটি মূলত ওয়েব পেনেট্রেশন টেস্টিংয়ের জন্য বিখ্যাত একটি অপারেটিং সিস্টেম। এটি সম্পূর্ণ লাইভ সংস্করণে তৈরি করা এবং এটি ভার্চুয়াল বক্স দ্বারাও ব্যবহার করা যায়। এতে রয়েছে সম্পূর্ণ ফ্রি এবং ওপেন সোর্স কিছু টুলস্‌ যেগুলো মূলত ওয়েব ভালনারেবিলিটি বের করতে ব্যবহার করা হয়। এজন্য এটাকে অন্যতম ওয়েব ভালনারেবিলিটি পেনেট্রেশন টেস্টিং অপারেটিং সিস্টেম বলা হয়। এর সর্বশেষ সংস্করণ হলো SamuraiWTF 3.3.2(2016)।
5. Pentoo Linux :-
Xento Linux-এর ওপর ভিত্তি করে কেবল পেনেট্রেশন টেস্টিংয়ের জন্য তৈরি অপারেটিং সিস্টেম Pentoo Linux। এই সিস্টেমটি XFCF-based । মূলত লাইভ ৩২ এবং ৬৪ বিটের এর জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে‌ Pentoo Linux। এতে রয়েছে Exploit, Cracker সহ আরও অনেক উন্নত টুলস্‌। এই অপারেটিং সিস্টেমের সবচেয়ে বড় আকর্ষণীয় দিক হলো- এটি সকল তথ্য আপনার পেনড্রাইভেই সংরক্ষণ করে রাখে। এর সর্বশেষ সংস্করণ Pentoo 2015.0 RC5 ।
6. DEFT Linux :-
এটি মূলত ফরেন্সিক এবং ডিজিটাল প্রমাণপত্রের জন্য বিশেষভাবে তৈরি ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেম। উবুন্টু এবং DART (Digital Advanced Response Toolkit) এর ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে DEFT Linux। এতে মূলত অসংখ্য ফরেন্সিক এবং তথ্য বিষয়ক টুলস্‌ বিদ্যমান। যা ইথিকাল হ্যাকিং, পেনেট্রেশন টেস্টিং এবং আইটি সিকিউরিটি স্পেশালিস্টরা ব্যবহার করে থাকেন। এর সর্বশেষ সংস্করণ Deft-8.2 ।
7. Caine :-
এটিও মূলত Ubuntu based লাইভ অপারেটিং সিস্টেম। এই অপারেটিং সিস্টেমটি প্রধানত Computer Aided Investigation Environment এর জন্য ব্যবহৃত হয়। ফরেন্সিক টুলসের জন্য জনপ্রিয় Caine । এর মধ্যে রয়েছে অসংখ্য database, memory, forensics এবং network analysis applications। এছাড়াও ইথিক্যাল হ্যাকিংয়ে ব্যবহৃত অনেক টুলস্‌ও বিদ্যমান। এর সর্বশেষ সংস্করণ caine-8.2 ।
8. Network Security Toolkit (NST) :-
এটি Fedora-based Linux distro যা ৩২ এবং ৬৪ বিট উভয় প্লাটফর্মে ব্যবহার উপযোগী একটি অপারেটিং সিস্টেম। একে Live Boot ডিভাইস হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। এটি একটি নেটওয়ার্ক সিকিউরিটি এপলিকেশন, যা মূলত পেনেট্রেশন টেস্টিংয়ে ব্যবহার করা হয়। এই অপারেটিং সিটেমটি intrusion detection, network traffic sniffing, network packet generation, network/host scanning এসব কাজে ব্যবহৃত হয়। এর সর্বশেষ সংস্করণ nst-26-9267।
9. BlackArch Linux :-
সিকিউরিটি রিসার্চার এবং এথিক্যাল হ্যাকারদের কাছে অত্যন্ত পরিচিত একটি অপারেটিং সিস্টেম হলো BlackArch। প্রায় ১৪০০ -এরও অধিক টুলসের সমন্বয়ে Arch Linux হতে উদ্ভূত এই অপারেটিং সিস্টেম বিভিন্ন হ্যাকিং কার্যে ব্যবহার করা হয়। এর সর্বশেষ সংস্করণ আসে ১১ই ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে।
10. ArchStrike Linux :-
হ্যাকিংয়ে ব্যবহৃত একটি প্রচলিত অপারেটিং সিস্টেম ArchStrike। এটি পেনেট্রেশন টেস্টিংয়ের জন্য বিশেষায়িত অপারেটিং সিস্টেম। এটি মূলত Arch Linux কে অুনসরণ করে। উল্লেখ্য, অন্যান্য লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম হতে এটি একটু ভিন্ন। এতে Arch Linux এর স্বত্বাধিকারে প্রচুর পেনেট্রেশন টেস্টিং টুল রয়েছে যা সিকিউরিটি প্রফেশনালরা ব্যবহার করে থাকেন। এর সর্বশেষ সংস্করণ ArchStrike-openbox-2016.07.21 ।
11. Tails OS :-
অসংখ্য বিল্ড-ইন অ্যাপলিকেশন নিয়ে তৈরী একটি ডেবিয়েন-বেসড্‌ অপারেটিং সিস্টেম হলো Tails। এটি এমন একটি অপারেটিং সিস্টেম, যা যেকোনো অপারেটিং সিস্টেমেই ডিবিডি ও পেনড্রাইভ দিয়েই চালানো যায়। এর প্রধান কাজ হলো যেকোনো গোপনীয়তা রক্ষা করা। এটি একটি Untraceable অপারেটিং সিস্টেম, যা অ্যানোনিমাসলি যেকোনো ওয়েব সার্ফ করতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে ক্রিপ্টোগ্রাফিক টুলস্ ব্যবহার করে বিভিন্ন ফাইল, ই-মেইল, তথ্য এনক্রিপ্ট করা হয়। এর সর্বশেষ সংস্করণ Tails 3.3 ।
Thank you so much for reading my post.
 Click Facebok ID Paresh chandra bhowmick
==================================
      ***Enjoy and stay connected with me***
==================================
Skype:- https://www.skype.com/sp paresh/
Website :- http//www.spparesh.com/

Please share the Post




Leave a Reply



Copyright © 2019 - Bestsolution all rights reserved
Translate »