সুখ????

profile Sanjida tohmin , 2020 March 19

সুখ আসতে শুরু করলে চারদিকে সুখের বান ডেকে যায়।

—হুমায়ূন আহমেদ

6 Comments , 5230 Views



Sanjida tohmin , 2020 March 20

পৃথিবীতে ভুত বলতে কিছু নেই, ভুত শব্দটা কাল্পনিক। কেউ যদি বলে ভুত দেখেছে তাহলে সেই কথা আমি বিশ্বাস করি না শুধু মাত্র নিজের কল্পনায় সৃষ্টি। পৃথিবীতে জ্বীনের অস্তিত্ব আছে এই কথা সবারই জানা। মানুষ ও জ্বীন সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টি। জ্বীনেরা যে কোন সময় যে কোন রূপ ধারণ করতে পারে বলেই জানি। তারা মানুষের চেয়ে অনেক বেশি বছর বেচে থাকে, দুই হাজার বছর আড়াই হাজার বছর অথবা তার চেয়েও বেশি। জ্বীনদের মধ্যে ভাল-খারাপ দুটোই আছে। অনেক গবেষকের মতে মালয়েশিয়া-ইন্দোনেশিয়াতে ও ফিলিপাইন জ্বীনেদের বসবাসের সংখ্যা অনেক বেশি। এই দেশ গুলোর বেশিরভাগ জায়গা জুড়ে পাহাড় ও জঙ্গল। এই কারণেই জ্বীনেরা নাকি তাদের বসবাসের জন্য এই দেশ গুলোকে বেছে নিয়েছে। বর্তমানে মালয়েশিয়াতে আমার অবস্থান। আমার নিজ চোখে দেখা ভয়ংকর কিছু ঘটনা সবাইকে জানাবো। প্রথম যখন মালয়েশিয়া আসলাম একটি তিন তলা বাড়িতে থাকতাম। ৩য় তলায় আমি এবং আমার এক বন্ধু থাকতাম। ২য় তলায় দু’টি কক্ষ, কক্ষ দু’টিতে আরো দু’জন বাঙালি থাকতো। নিচ তলায় রান্না করার ঘর এবং বাকি অংশ ফাকা। একদিন রান্না করছিলাম, বাড়িতে আর কেউ ছিল না সেই সময়। উপরে আমার কক্ষে মোবাইলের রিং-টোন বাজছে, ফোন করেছে কেউ। রান্না ঘর থেকে বের হয়ে

Sanjida tohmin , 2020 March 20

Sanjida tohmin , 2020 March 20

Sanjida tohmin , 2020 March 20

Sanjida tohmin , 2020 March 20

গল্প নয় সত্য ঘটনা জন্তুওয়ালা অনেক জন্তু লইয়া শহরে একটি ঘর ভাড়া করিয়াছে। মনে করিয়াছে, আজ হাটের দিন বিন্তর লোক আসিবে, আর তামাশা দেখিয়া পয়সা দিবে। হাটে লোকের কম নাই, কিন্তু জন্তুওয়ালার ঘরের আধখানাও ভরিল না। জন্তুগুলারও যেন ফুর্তি নাই। লোক কম দেখিয়া তাহারাও কেমন হাল ছাড়িয়া দিয়াছে। ভাল তামাশা হইতেছে না দেখিয়া যে দু-চার জন দর্শক উপস্থিত, তাহারাও হাসি- ঠাট্রা করিতেছে। এমন সময়ে বাঘটার যেন কি হইল। সে এতক্ষণ খাঁচার এক কোণে শুইয়া ঝিমাইমেছিল। কথা নাই, বার্তা নাই, হঠাৎ লাফাইয়া উঠিয়া, খাঁচার শিক ধারিয়া দাঁড়াইয়া ভয়ানক গর্জন! সেই গর্জন শুনিয়া দর্শকেরা হাসি ঠাট্রা ফেলিয়া, দুই লাফে দূরে সরিয়া গেল। ব্যাপারখানা কি? এত রাগের ত কোনো কারণই দেখা যায় না- তবে ঐ যে গাঁট্রাগোট্রা, লাল-গোঁপওয়ালা জাহাজের মাল্লাটা, নীল কোট পরিয়া থেঁতলো টুপি মাথায় দিয়া, এইমাত্র তামাশা দেখিবার জন্য ঘরের ভিতরে আসিয়াছে। তাহাকে দেখিয়া যদি বাঘ মহাশয়ের ক্রোধ হইয়া থাকে। মাল্লা বাঘের খাঁচার দিকে চাহিল, বাঘটাকেও খানিকক্ষণ ধরিয়া মনোযোগ করিয়া দেখিল, তারপর অমনি একেবারে বাঘের কাছে গিয়া উপস্থিত! বাঘ তাহাকে কাছে পাইয়া আরো গর্জন ক

Sanjida tohmin , 2020 March 20